কাতারে বসছে বাংলাদেশি খাবারের উৎসব

বাংলাদেশের খাবার নিয়ে কাতারে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘বাংলাদেশি ফুড ফেস্টিভ্যাল’। দেশটির অন্যতম পর্যটন নগরী কাতারায় এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। উৎসবের সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারিত হয়েছে আগামী ২২ ও ২৩ মার্চ। এই উৎসবের মাধ্যমে কাতারের নাগরিক এবং এখানে বসবাসরত নানা দেশের অভিবাসী বাংলাদেশের খাবার ও এর বৈচিত্র্যময় স্বাদ সম্পর্কে জানার সুযোগ পাবেন।

প্রাথমিকভাবে এই উৎসবে ১৫টি স্টল থাকবে বলে দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে। এতে কাতারের প্রবাসী বাংলাদেশি রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীরা অংশ নেবেন। এই আয়োজনকে ফলপ্রসূ করতে বিভিন্ন বাংলাদেশি রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে প্রস্তুতিমূলক বৈঠক করেছেন কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ। গত ২২ জানুয়ারি আলহিলাল এলাকায়
বাংলাদেশ দূতাবাসে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

জানতে চাইলে রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা এই বৈঠকে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে উদ্যোগটি সম্পর্কে আলোচনা করেছি। বাংলাদেশি রেস্তোরাঁর মালিক ও ব্যবসায়ীরা এটিকে স্বাগত জানিয়েছেন। পাশাপাশি কাতারা কর্তৃপক্ষের কিছু নিয়মকানুন সম্পর্কে তাঁদের অবহিত করা হয়েছে।’

রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমদ আরও বলেন, ‘এর আগেও আমরা বাংলাদেশি চিত্রকর্ম প্রদর্শনী ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনার আয়োজন করেছিলাম। এখন এই ফুড ফেস্টিভ্যালের মাধ্যমে বিদেশে বাংলাদেশের খাবার ও এর সমৃদ্ধ জগৎ তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছি। এর ফলে বিদেশিরা বাংলাদেশ সম্পর্কে আরও বেশি জানতে পারবেন।’

বৈঠকে অংশ নেওয়া স্টার অব ঢাকা রেস্তোরাঁর স্বত্বাধিকারী মাহাবুব হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘এটি আমাদের জন্য অনেক বড় সুখবর। কাতারে এই প্রথমবারের মতো এমন আয়োজন হতে যাচ্ছে। আমরা সব সাধ্য দিয়ে এই আয়োজনকে সুন্দর করতে চেষ্টা করে যাব।’

বৈঠকে বিভিন্ন বাংলাদেশি রেস্তোরাঁর মালিক ও ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আনন্দ রেস্তোরাঁ, বৈশাখী রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন বাংলাদেশি রেস্তোরাঁর মালিকেরা এই আয়োজনকে সফল করতে নানা প্রস্তাবনা দেন। পাশাপাশি সম্মিলিতভাবে বাংলাদেশকে কাতারবাসীর সামনে তুলে ধরতে তাঁরা একমত হন বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। উৎসবে কী কী ধরনের খাবার কীভাবে উপস্থাপন করা যেতে পারে, সে সব নিয়েও আলোচনা হয়। উৎসব চলাকালে কাতারে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিকদের সম্মানে ভোজের আয়োজন থাকবে বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে।