মেসি-সুয়ারেসের গোলে বার্সার জয়

গোল করেই চলেছেন ছন্দে থাকা লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেস। আর তাতে দারুণ গতিতে এগিয়ে চলেছে বার্সেলোনা। আক্রমণভাগের এই দুই খেলোয়াড়ের নৈপুণ্যে এবার দেপোর্তিভো আলাভেসকে হারিয়েছে এরনেস্তো ভালভেরদের দল।

রোববার রাতে কাম্প নউয়ে পয়েন্ট টেবিলের নিচের দিকের ক্লাবটির বিপক্ষে ২-১ জিতেছে বার্সেলোনা। অগাস্টে দলটির মাঠ থেকে ২-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছিল ভালভেরদের শিষ্যরা।

ম্যাচের শুরু থেকে বল পেতে লড়াই করতে থাকা আলাভেস ১৬তম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে এগিয়ে যেতে পারতো। তবে দ্রুত এগিয়ে এসে সে যাত্রায় দলকে বাঁচান গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

বেশিক্ষণ জাল অক্ষত রাখতে পারেননি তিনি। সাত মিনিট পর আরেকটি পাল্টা আক্রমণে অতিথিদের এগিয়ে দেন ইয়োন গিদেত্তি। নিজেদের সীমানা থেকে স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ইবাই গোমেসের লম্বা পাস ধরে দারুণ ক্ষিপ্রতায় ছুটে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন সুইডেনের এই ফরোয়ার্ড। পিছনে ছোটা ডিফেন্ডার সামুয়েল উমতিতি বাধা দেওয়ার কোনো সুযোগ পাননি।

খানিক পর ফের গোল খেতে বসেছিল স্বাগতিকরা। এ যাত্রায় রুবেন সোব্রিনোর ভলি ঠেকান টের স্টেগেন। ৩০তম মিনিটে মেসির পাস ধরে উড়িয়ে মারেন আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। দুই মিনিট পর সুযোগ হারান বার্সেলোনার জার্সিতে প্রথমবার শুরুর একাদশে নামা ফিলিপে কৌতিনিয়ো।

বিরতির আগে মেসির দারুণ ফ্রি-কিক বাঁ-দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক ফের্নান্দো পাচেয়ো। বল তার হাত ছুঁয়ে পোস্টে বাধা পায়।

৫৯তম মিনিটে জর্দি আলবার বাড়ানো বল ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে ঠিকমতো শট নিতে পারেননি মেসি। দুই মিনিট পর পাল্টা আক্রমণে গোলরক্ষককে একা পেয়ে শট নিতে দেরি করে ফেলেন গোমেস।

৬৮তম মিনিটে মেসির বাড়ানো বল ছয় গজ বক্সের বাইরে পেয়ে সুয়ারেসের নেওয়া শট গোলরক্ষকের পায়ে বাধা পায়। দুই মিনিট পর গোলমুখে পাওলিনিয়োর প্রচেষ্টা রুখে দেন গোলরক্ষক।

এমন অনেক সুযোগ নষ্টের ভিড়ে ৭২তম মিনিটে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। বাঁ-দিকের বাইলাইন থেকে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার দারুণ ক্রস ডান দিকে পেয়ে দুরূহ কোণ থেকে ভলিতে বল জালে জড়ান সুয়ারেস। এই নিয়ে লিগে টানা আট ম্যাচে জালের দেখা পেলেন তিনি।

লিগে শেষ আট ম্যাচে ১১টি ও এবারের লিগে মোট ১৬ গোল করলেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার।

আর ৮৪তম মিনিটে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে চমৎকার ফ্রিকে জয়সূচক গোলটি করেন মেসি। পাচেয়ো বাঁয়ে ঝাঁপিয়ে বলে হাত লাগালেও রুখতে পারেননি।

এবারের লিগে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের এটা ২০তম গোল।

শেষ দিকে ডি-বক্সের মধ্যে থেকে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার গোলরক্ষক বরাবর শট নিলে ব্যবধান আর বাড়েনি।

২১ ম্যাচে ১৮ জয় ও তিন ড্রয়ে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বার্সেলোনা।

দিনের অন্য ম্যাচে লাস পালমাসকে ৩-০ গোলে হারানো আতলেতিকো মাদ্রিদ ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে।

৬ পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে ভালেন্সিয়া। চতুর্থ স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৩৮। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে তারপরেই আছে ২১ ম্যাচ খেলা ভিয়ারিয়াল।