ওয়ানডেতেও তিনে ব্যাট করবেন সাকিব

দুই দলে ভাগ হয়ে খেলা প্রস্তুতি ম্যাচে শনিবার তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছিলেন সাকিব আল হাসান। হুট করেই এই সিদ্ধান্ত নয়, বরং এটি ছিল প্রস্তুতিরই অংশ। আসছে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে টুর্নামেন্টে যে তিন নম্বরেই ব্যাট করবেন এই অলরাউন্ডার!

টি-টোয়েন্টিতে বরাবরই সাকিবের প্রিয় পজিশন তিন নম্বর। এই পজিশন থেকে সরিয়ে দেওয়ায় সাবেক কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে টানাপোড়েনও ছিল তার। সবশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিনেই ব্যাট করেছেন সাকিব। এবার ওয়ানডেতেও নিয়মিত হতে চান তিনে।

বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের একটি সূত্র বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে নিশ্চিত করেছে, আসছে ত্রিদেশীয় সিরিজের শুরুটায় অন্তত সাকিবের তিনে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত মোটামুটি পাকা। সফল হলে তো কথাই নেই। ব্যর্থ হলে পরবর্তীতে পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সবশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে প্রথম ওয়ানডেতে তিন নম্বরে ব্যাট করেছিলেন সাকিব। আউট হয়েছিলেন ২৯ রানে। পরের দুই ম্যাচে আবার নেমে যান পাঁচ নম্বরে। এছাড়া ওয়ানডে ক্যারিয়ারে আর একবারই তিনে ব্যাট করেছেন সাকিব। ২০১৪ সালে সেই ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আউট হয়েছিলেন শূন্য রানে।

টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য তিনেই সবচেয়ে সফল সাকিব। ক্যারিয়ার ব্যাটিং গড় ২৩.০৭ হলেও তিনে গড় ৩৩.৩৭। চার নম্বরে ২৬ ইনিংস ব্যাট করে ফিফটি মাত্র একটি, পাঁচে ১৫ ইনিংসে নেই একটিও। তিনে ১৮ ইনিংসেই ফিফটি ৫টি।

মূলত দলের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজনকে উইকেটে আরও বেশি সময় দেওয়া ও তার কাছ থেকে সেরাটা পেতেই সাকিবকে তিনে নামানোর এই সিদ্ধান্ত। প্রস্তুতি ম্যাচে অবশ্য খুব সুবিধে করতে পারেননি। তাসকিন আহমেদকে বেরিয়ে এসে খেলতে গিয়ে আউট হয়েছেন ২৪ রানে।

সাকিবকে তিনে রেখে ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ব্যাটিং অর্ডারও মোটামুটি চূড়ান্ত করে ফেলেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। ওপেনিংয়ে তামিম ইকবালের সম্ভাব্য সঙ্গী এনামুল হক। এই টুর্নামেন্ট দিয়েই দলে ফেরার প্রবল সম্ভাবনা এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের। চারে মুশফিকুর রহিম, পাঁচে মাহমুদউল্লাহ, ছয়ে সাব্বির রহমান ও সাতে নাসির হোসেন।