স্মৃতিসৌধে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টের শ্রদ্ধা

সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো।

রোববার সকাল ৮টা ২৫ মিনিটে তিনি স্মৃতিসৌধে পৌঁছালে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, স্থানীয় সাংসদ এনামুর রহমান, গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, ঢাকা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন ও পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান তাকে স্বাগত জানান।

রোহিঙ্গাদের দুর্দশা নিজের চোখে দেখতে শনিবার দুই দিনের সফরে বাংলাদেশে আসেন উইদোদো। ফার্স্ট লেডি ইরিয়ানা জোকো উইদোদোও তার সঙ্গে এসেছেন।

প্রেসিডেন্ট উইদোদো ২০ মিনিট সৃতিসৌধে অবস্থান করেন। তিনি শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় তিন বাহিনীর একটি দল গার্ড অব অনার দেয়। পরে শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন তিনি।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট স্মৃতিসৌধের পরিদর্শন বইতে সই করেন এবং স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে একটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন।

দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট কক্সবাজারে যান রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে দেখতে।

গত অগাস্টের শেষ দিকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী দমন অভিযানে নামলে কয়েক দশকের পুরনো রোহিঙ্গা সঙ্কট নতুন মাত্রা পায়। এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় ও জরুরি সহায়তা দিয়ে যে ভূমিকা বাংলাদেশ রেখেছে, তার প্রতি সংহতি জানিয়ে গত সেপ্টেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদিকে বাংলাদেশে পাঠিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট উইদোদো।

এবার তিনি নিজেই এসেছেন রোহিঙ্গাদের মুখ থেকে তাদের দুর্দশার কথা শুনতে।

এর আগে ডিসেম্বেরে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম এবং দেশটির ফার্স্ট লেডি এমাইন এরদোয়ান এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগলু সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে এসে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে যান।